শেয়ার করুন:

ভূমিকা ও অনুবাদ : মনসুর আজিজ

 
 
[তিউনিশ কবি আইনেস আব্বাসী’র জন্ম ১ ফেব্রুয়ারি ১৯৮২। ঔপন্যাসিক, ছোটগল্পকার, শিশুসাহিত্যিক ও অনুবাদক হিসেবেও তিনি এর মধ্যে বেশ সুনাম অর্জন করেছেন। বাতাসের রহস্য (২০০৪), অন্ধের সংগ্রহশালা (২০০৭) সহ তার কাব্যগ্রন্থের সংখ্যা তিনটি। লেখালেখির স্বীকৃতিস্বরূপ পেয়েছেন Tunisian Poetry Prize ও The CREDIF Prize. Menzel BOURGUIBA (2018) । উপন্যাসের জন্য পেয়েছেন COMAR Prize. Tales of the Korean Scheherezade (2010; 2013) এর জন্য ছয় মাস সময় কাটিয়েছেন সিউলে। ফরাসি সাহিত্যকে আরবিতে অনুবাদ করছেন নিয়মিত। Kim Thuy’s Ru (2016) and Jose Mauro de Vasconcelos’s My Sweet Orange Tree (2017) ফরাসি থেকে আরবিতে অনূদিত তাঁর অন্যতম দুটি গ্রন্থ। তিউনিশিয়া ছাড়াও বিশ্বের বিভিন্ন দেশে তার লেখা নিয়মিত প্রকাশিত হয়। ইংরেজি, ফরাসি, কোরিয়া, ডেনিস ও সুইডিস ভাষায় তার লেখা ইতোমধ্যেই অনূদিত হয়েছে। পেশায় সাংবাদিক আইনেস বসবাস করছেন তিউনিশিয়ার রাজধানী তিউনিশে। এই প্রথম বাংলায় অনূদিত হলো আইনেস আব্বাসীর কবিতা। কবিতাটি আমেরিকা থেকে প্রকাশিত ব্রুকলিন রেইল থেকে নেয়া হয়েছে। আরবি থেকে ইংরেজিতে অনুবাদ করেছেন আলী জুনাইদি।বাংলায় তাঁর কবিতা অনূদিত হওয়ায় তিনি উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন। আড্ডাপত্রকে তিনি অভিনন্দন জানান।]
 
 

সুরমা চোখের কান্না

 
ছদ্মবেশে নিশুতি রাতকে বুনে যাওয়া
নীলাভ উষা ছুঁয়ে যায় উত্তরঙ্গ সাগরের নিঃশ্বাস
প্রত্যাগমণ পথে লিলিফুলেরর সৌরভ পেয়ে
হৃদয় হয়ে ওঠে পরিপূর্ণ
আত্মা হয়ে যায় প্রশান্তিময়
কিন্তু শহর জেগে ওঠে গুপ্তঘাতকের ছোরা হাতে
বুনে যায় রুপালি দিন
স্মৃতি…
সময়ের ভিতর ঢুকে পড়ে স্মৃতি
অপেক্ষার বেড়া ভেঙে স্মৃতি চলে যায় সময়ের আবর্তে
রাতের জঠরে স্মৃতিগুলো জেগে ওঠে একাকী নিজের সাথে
তোমার নীল শার্টের উপর আমার সুরমা মাখা চোখ থেকে
যেমন গড়িয়ে পড়ে কান্নার ফোঁটা
উষার আলোয় চোখের প্রোজ্জ্বল পাপড়ির মতো ঝলমল করে ওঠে স্মৃতি
ছন্দময় স্বপ্নের মতো
 
স্মৃতি যেন আত্মার প্রত্যাবর্তনের একটি রজ্জু
স্বপ্নের মাঝখানে রাত্রি উন্মোচন করে সম্ভাব্য উর্বর মুখ
বিকশিত করে সময়ের গর্ভ
 
মানুষের পদক্ষেপের শুরু থেকে স্বপ্ন চলছে সমান্তরাল
জঙ্গলে যেমন পদছাপ দেখা যায় হঠাৎ করে;
নৃত্যরত নেকড়ের আচমকা দেখা পাওয়ার পর; যেমন বন্ধ হয়নি তোমার রক্তসঞ্চালন
হৃদয় যখন সন্ধান পায় কবিতার শরীরের ভিতর লুকানো তার আত্মা
আকাঙ্খার গোলাপ যেমন নির্ণয় করতে পারে না আবেগের কারণ
স্বপ্নের শ্বেতচত্তর জুড়ে আছে দুটি আলো; আর নিঃশ্বাস জুড়ে বৃন্তচ্যূত জুঁই ফুলের সুবাস
জানালার পাশে কেবল অহেতুক প্রেমের ভান করা।
 
স্মৃতির দূরত্ব এবং সঙ্গীতের আবেগময়তা
নৃত্য করে তার বর্ণমালার সাথে
সকল ভাষার আড়মোড়া ভেঙে ছড়িয়ে পড়ে সব মানুষের মাঝে…
এই রাত্রি কালো চাদরে আবৃত
ভায়োলিনের সুরের সাথে গভীর আলিঙ্গনরত
বাসনায় পূর্ণ, মৃদু আলোয় উদ্ভাসিত
রক্তকণিকায় বাজে কামনার ধুকপুক
সাগর যেমন লুকিয়ে রাখে উত্তাল ঢেউ
মৌমাছি যেমন লুকিয়ে রাখে মধু, ভাষার গুঞ্জন
এই হৃদয় আজ তোমার জন্য।
কমলা বাগান তার আকাঙ্খা লুকিয়ে রাখে পাতা ও ফুলের ভিতর
জুঁই যেমন মধুর সুবাসে লুকিয়ে রাখে আনন্দ
এই হৃদয় আজ তোমার জন্য
আমার তাবুতে তোমার জন্য খুলে রেখেছি আত্মার কীলক
রাত্রির ঘোড়াগুলো পাবে উষার মোলায়েম স্পর্শ
তরঙ্গের গর্জন, কান পেতে শুনতে পাবে শঙ্খচিলের দূরগত গান।
 
আমি ঝেড়ে ফেলে দিলাম সেইসব আলাপন
আমার ভাষা থেকে এবং স্মৃতির ধুলো
আত্মার উচ্চতায়,
                        প্রার্থনায়।
…………………………………..
* কবিতাটি আড্ডাপত্র ৩১তম সংখ্যা [মার্চ-এপ্রিল ২০২০], বর্ষ : ৮, সংখ্যা : ১, পৃ: ১৬৬-৬৮,  প্রিন্টভার্সনেও প্রকাশিত হয়েছিলো।]
Facebook Comments