শেয়ার করুন:

প্রথম কাব্যগ্রন্থ, প্রথম কবিতা আড্ডাপত্র প্রকাশ করছে। প্রথম কাব্যগ্রন্থের সাথে কবির আনন্দ, উচ্ছ্বাসের পাশাপাশি পাঠকের কানে নতুন কবিতার গুঞ্জরণ ভেসে আসে। পাঠকের মনে কবির প্রথম কাব্যগ্রন্থের প্রথম কবিতাটি তুলে ধরতে চায় আড্ডাপত্র। কবিতা পাঠের সাথে সাথে জানবো কবি সম্পর্কেও। এই আয়োজনটি পরবর্তীতে গ্রন্থাকারে প্রকাশিত হবে..

অন্ধকার আলো

মাসুদ মুস্তাফিজ

কেউ কী জানে কতোটা বিস্তীর্ন হলে চাঁদের আলো
ঘোরলাগা অন্ধকার নিকটে আসে
সময়োত্তর আলোর মাতামাতিতে মানুষ দেখে না
কিছুই– এর চেয়ে চক্ষুষ্মান দুবোর্ধ্য অন্ধকার ভালো
জীবন তো ছুঁড়ে মারা অসুরের তীর! লক্ষ্য নিশ্চিত
হোক বা না হোক ফেরে না যেনো
কিছুতেই; আসলে যাওয়ার আরেক নাম শূন্য
প্রস্থান; শূন্য সরে যায় আরেক আসে
পশ্চিম যতো দূর তার চেয়ে পূর্ব ততো নিকটে-
এতো কালের সীমায় অনন্ত ঈশ্বর!
আমাদের ফেলে যাওয়া শৈশব লাফিয়ে উন্মত্ত
কৈশোর-যৌবন-ভ্রমণের সুদীর্ঘকাল; মোহ- প্রেম
মাটিতে শেকড় ফেলে অনুঢ়া প্রেমে মাটি মানে এই
শৈশবের মায়া-মমতা এবং জড়তার
মোহ ভুল প্রণয়ের বিনিন্দ্র রাত আর আলো মানে
অন্ধকার তার ঢেকে দেয়া সোনালি চাতর-তীব্রতায়

দিকচিহ্নহীন প্রকৃতির অন্ধ ভালোবাসা শুধু আলো

মাসুদ মুস্তাফিজ নব্বই দশকের অন্যতম কবি। জন্ম দিনাজপুর শহরের মাধববাটি গ্রাম ২২ নভেম্বর ১৯৬৯ । তিনি গ্রামের ইশকুলে প্রাইমারি, মাধ্যমিক পাশ করে উচ্চমাধ্যমিক পড়াশোনা করেন।
দিনাজপুর সরকারি কলেজে একবছর অর্থনীতিতে অর্নাস পড়েন। পরবর্তীতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্যবস্থাপনা বিভাগে ভর্তি হয়ে মাইগ্রেশনে ইংরেজি বিভাগে পড়াশোনা করেন। পড়াশোনাকালে দুইবার পরীক্ষা ছেড়ে চলে আসেন গ্রামে। অনেক পরে উচ্চশিক্ষা সম্পন্ন করেন। অন্যদিকে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে বাংলায় মাস্টার্স করেন। পেশাগত জীবনে একজন শিক্ষক। থাকেন দিনাজপুরে।পারিবারিক জীবনে দুই কন্যার জনক। অনুভব মুস্তাফিজ এবং নিঝুম মুস্তাফিজ।
মাসুদ মুস্তাফিজ লেখালেখি শুরু করেন ১৯৮৮ সালে। ওই বছরই প্রকাশিত হয় তার লেখা।লেখালেখি ৮৮ তে শুরু করলেও তার কবিতার বই প্রকাশিত হয় ২০১০ সালে।এদিক থেকে তিনি পিছিয়ে।অনিয়মিতভাবে তিনি সম্পাদনা করছেন ‘নাক্ষত্রিক’ ও ‘অগ্নিসেতু’ নামে দুটি ছোটকাগজ।
প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থ: বিষ্টির প্রহর গুনতে গুনতে (আমার প্রকাশনী, ঢাকা ২০১০); ব্রিজ পেরোচ্ছি না স্বপ্ন পেরোচ্ছি : ভাষাচিত্র, ঢাকা ২০১২); কিছু সমুদ্র কিছু বিষণ্নতা : (কবি প্রকাশনী, ঢাকা ২০১৩); জলবাতায়নে রঙঘুড়ি (কবি প্রকাশনী, ঢাকা ২০১৪); মাতালরোদে মেঘে অরণ্য (শব্দসাঁকো, কলকাতা-২০১৮); প্রতিশোধ, সংকট এবং অপচয়ের কবিতা (বেহুলাবাঙলা, ঢাকা ২০১৮); স্বভাবদুর্বৃত্ত বাতাসে কুয়াশার কৃষ্ণতীর্থ ( দেশ পাবশিকেশন্স, ঢাকা ২০১৫); সোনার বরন দুঃখ (বেহুলাবাঙলা, ঢাকা ২০১৯)।
গদ্যগ্রন্থ: সাহিত্যচিন্তা ও বৈচিত্র্যপাঠ : (উৎস প্রকাশন, ঢাকা-২০১৩); অবমুক্ত বৃত্তায়ন : (বেহুলাবাঙলা, ঢাকা-২০১৮)
পুরস্কার ও সম্মাননা: ক্যাপ্টেন মনসুর আলী সাহিত্য পদক (২০১২ ); ইয়ুথ ফর হিউম্যান রাইটস্ ইন্টারন্যাশনাল ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ কতৃক প্রদত্ত ‘মানবাধিকার সম্মাননা’ (২০১৮)।

Facebook Comments