শেয়ার করুন:

প্রথম কাব্যগ্রন্থ, প্রথম কবিতা আড্ডাপত্র প্রকাশ করছে। প্রথম কাব্যগ্রন্থের সাথে কবির আনন্দ, উচ্ছ্বাসের পাশাপাশি পাঠকের কানে নতুন কবিতার গুঞ্জরণ ভেসে আসে। পাঠকের মনে কবির প্রথম কাব্যগ্রন্থের প্রথম কবিতাটি তুলে ধরতে চায় আড্ডাপত্র। কবিতা পাঠের সাথে সাথে জানবো কবি সম্পর্কেও। এই আয়োজনটি পরবর্তীতে প্রন্থাকারে প্রকাশিত হবে

পরকীয়া

মাহমুদ কামাল

তোমাকে খুঁজেছি আমি পৃথিবীর সকল বিবরে
এইবার পেয়ে গেছি নারী তুমি কার ব্যবহারে
ব্যবহৃত হয়ে আছো পরাজিত নদীটির চরে।
প্রজাপতি ডাকে যদি তবে কেন নীরবে জড়াও
নদীর যৌবন নেই চিহ্নটুকু নিয়ে আছে যদি
কী লাভ সহজ সত্যে ভেলা তবু পাবে না তো পানি
আশেপাশে পড়ে আছে কিছু কিছু অচির উপল
এই নিয়ে সুখে আছো, হায় নারী, হৃদয়ে অসুখ
সেই আদিকাল থেকে খুঁজে খুঁজে পেয়েছি তোমাকে
হারাতে চাই না আমি, এ আমার অপরোক্ষ দাবী।
অবনী বহিয়া যাক হোক যতো অকাল সময়
তোমার যৌবন তবু চুপচাপ হবে না তো ক্ষয়।
মোহন বাঁশির সুরে উচাটন হয়ে যায় মন
বাইরে বেরুতে চাই আঁচল যে বাঁধা পড়ে প্রিয়
দরোজা বন্ধ হলে এ হৃদয় মেলে রাখি তবু।
তোমাকে যখন দেখি এলোচুলে তোমার স্বভাব
এলোমেলো হয়ে যাই, পিছুটানে দূর পরকীয়া
তোমাকে যখন আমি এই বুকে রেখে দিতে চাই
তীর্যক তোমার চোখ নিশিদিন আমাকে তাড়ায়
ব্যাকুল নয়নে আমি নির্ণিমেষ তাকাই রোদ্দুরে
ধনু হতে ভুলে যদি কোন ক্রমে খসে যায় তীর
তখন কি কোনো নারী শুধু শুধু বসে থাকে স্থির?
এ হৃদয় কবেই দিয়েছি তার কিছু মনে আছে ছাই
আঁচলে চাবির গোছা নিয়ে ফের নিয়ত পিছাই।
…………………………………………………….
[ মাহমুদ কামাল সত্তর দশকের অন্যতম কবি। কবিতার পাশাপাশি লিখেছেন উপন্যাস, গল্প, প্রবন্ধ। সম্পাদক ও সংগঠক হিসেবে তাঁর পরিচিতি বিশ্বজুড়ে, বাংলাভাষাভাষী মানুষের কাছে। প্রকৃত নাম আবু হেনা মোস্তফা কামাল। টাঙ্গাইল জেলার আকুর টাকুর এলাকায় ২৩ অক্টোবর ১৯৫৭ সালে তিনি জন্মগ্রহণ করেন।পিতা মো. আব্দুস সালাম, মাতা দেলোয়ারা বেগম। স্ত্রী জাকিয়া সুলতানা কান্তা। বর্তমানে স্থায়ীভাবে বসবাস করছেন টাঙ্গাইলের আদালত পাড়ায়।
মাহমুদ কামাল টাঙ্গাইলের বিন্দুবাসিনী উচ্চ বালক বিদ্যালয় থেকে ১৯৭৪ সালে মাধ্যমিক ও শামসুল হক মহাবিদ্যালয় থেকে ১৯৭৯ সালে উচ্চ মাধ্যমিক পাস করেন।পরবর্তীতে সা’দত কলেজ থেকে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে ১৯৮২ সালে স্নাতক ও ১৯৮৩ সালে স্নাতকোত্তর ডিগ্রী লাভ করেন। তিনি দীর্ঘদিন বি.জি.বি কলেজে অধ্যাপনা করে বর্তমানে লেখালেখি নিয়ে অবসর জীবন কাটাচ্ছেন।
মাহমুদ কামালের প্রকাশিত গ্রন্থের মধ্যে রয়েছে; কাব্যগ্রন্থ : ১. পরকীয়া (১৩৯২, তৃতীয় প্রকাশ ১৯৯৭) ; ২. কবিতার মত কিছু কথা (১৯৮৭) ;
৩. শব্দেরা কখনো মানতে চায় না ছন্দাছন্দ (১৯৯০); ৪. স্বপ্নের রাজকন্যা (১৯৯৮) ; ৫. বিরামচিহ্ন (১৯৯৯) ; ৬. দ্বিতীয় জীবন (২০০১) ; ৭. বিকেলের সকল চড়ুই (২০০৩); ৮. বালক বয়সে (২০০৪) ; ৯. মেঘেরা কোথায় যায় (২০০৫) ; ১০. মুহূর্তের কবিতা (২০০৬); ১১. কাব্যসমগ্র (২০০৮) ; ১২. বাকিটুকু অদ্ভুত আঁধার (২০১০) ; ১৩. মুখোশের ভেতরে মুখোশ (২০১২); ১৪. নির্বাচিত কবিতা (২০১৫) ; ১৫. বদলে যায় পথের প্রকৃতি (২০১৪) ; ১৬. আসে যায় মাঝখানে সামান্য সময় (২০১৭) ; ১৭. যাবো না তবু যাই (২০২০)।
গল্পগ্রন্থ : ১৮. গৃহপরিচারিকার গৃহভৃত্য (১৯৯১) ; ১৯. এলাচিপুরের সেই লোক (২০১৪) ; ২০. নির্বাচিত গল্প ( ২০১৯ )।
উপন্যাস : ২১. স্বপ্ন বৃত্তান্ত অথবা জীবনের লক্ষ্য (২০০৭)।
প্রবন্ধ : ২২. চলমান রাজনীতি ও অন্যান্য প্রসঙ্গ (২০০৫) ; ২৩. মুক্ত চিন্তার বিবিধ বিবেচনা (২০১৩); ২৪. গদ্য কতিপয় (২০১৮) ;
ভ্রমণ : ২৫. দেশের বাড়ি পাশের বাড়ি (২০০৬)।
স্মৃতি কথা : ২৬. জীবনের ভিতরে মৃত্যু (২০১১)।
সম্পাদনা : ২৭. ষাটের দশকের কবিতা (কামাক্ষা নাথ সেনের সঙ্গে যৌথ ১৯৯১) ; ২৮. শ্যামল সেনের কবিতা (১৯৯৫) ; ২৯. সত্তর দশকের কবিতা (কামাক্ষা নাথ সেনের সঙ্গে যৌথ – ১৯৯৬); ৩০. টাঙ্গাইলের বারো মনীষী (২০০৩) ; ৩১. অরণি (সাহিত্য পত্রিকা ১৯৭৬ সাল থেকে প্রকাশিত) ;
৩২. কামাক্ষা নাথ সেন স্মারকগ্রন্থ (২০০৪) ; ৩৩. হ্যান্ড কম্পোজ দুই ফর্মা (২০০২) ; ৩৪. টাঙ্গাইলের কবি ও কবিতা (মোহাম্মদ আবদুল মান্নানের সঙ্গে যৌথ -২০০৫) ; ৩৫. বাংলা কবিতা উৎসব স্মারক গ্রন্থ – ২০০২ (২০০৩) ; ৩৬. টাঙ্গাইলের গল্পকার, নির্বাচিত গল্প (মোহাম্মদ আবদুল মান্নানের সঙ্গে যৌথ ২০০৬) ; ৩৭. সাহিত্য সংসদের নির্বাচিত কবিতা (২০০৪); ৩৮. সব্যসাচী আবু কায়সার (মোহাম্মদ আবদুল মান্নানের সঙ্গে যৌথ ২০০৬) ; ৩৯. বাংলা কবিতা উৎসব- ২০০৬ দুদিনের মিলন মেলা (মোহাম্মদ আবদুল মান্নানের সঙ্গে যৌথ ২০০৬) ; ৪০. টাঙ্গাইলের নির্বাচিত ছড়া (মোহাম্মদ আবদুল মান্নানের সঙ্গে যৌথ ২০০৭) ; ৪১. উত্তম দাশ : মনে ও মননে (উজ্জ্বল কুমার মজুমদারের সঙ্গে যৌথ- ২০০৯) ; ৪২. আশির দশকের কবিতা (মোহাম্মদ আবদুল মান্নানের সঙ্গে যৌথ ২০১০) ; ৪৩. বাংলা কবিতা উৎসব স্মারকগ্রন্থ- ২০১০ (খান মাহবুবের সঙ্গে যৌথ- ২০১২) ; ৪৪. কবি উত্তম দাশ জীবন ও সাহিত্য ২০১৮ ( মোহাম্মদ আবদুল মাননান এর সঙ্গে যৌথ ) ; ৪৫. কবিদের শ্রেষ্ঠ কবিতা-২০১৯ (মোহাম্মদ আবদুল মাননান এর সঙ্গে যৌথ); ৪৬. কেনো লিখি-২০২০ (মোহাম্মদ আবদুল মাননান এর সঙ্গে যৌথ);
সংগঠন :
সম্পাদক, সাধারণ গ্রন্থাগার, টাঙ্গাইল ; সদস্য, বাংলা একাডেমী, ঢাকা ; জীবন সদস্য, রেডক্রিসেন্ট সোসাইটি, টাঙ্গাইল; সদস্য, শিল্পকলা একাডেমী, টাঙ্গাইল; জীবন সদস্য, পরিবার পরিকল্পনা সমিতি, টাঙ্গাইল ; সদস্য, টাঙ্গাইল ক্লাব, টাঙ্গাইল; সম্পাদক, অরণি সাহিত্য গোষ্ঠী, টাঙ্গাইল ; সহ-সভাপতি, সোসাইটি ফর সোসাল সার্ভিস, টাঙ্গাইল; উপদেষ্টা, জাতীয় রবীন্দ্র সঙ্গীত সম্মিলন পরিষদ, টাঙ্গাইল ; সম্পাদক, টাঙ্গাইল সাহিত্য সংসদ, টাঙ্গাইল
পুরস্কার/সম্মাননা; বাংলাদেশ :
বাংলাদেশ পরিষদ পুরস্কার (১৯৭৬); শহীদ বুদ্ধিজীবী পদক (২০০৬) ; মানবিক চেতনা পরিষদ পদক (২০০৬); আধুনিক কবি সংঘ সম্মাননা (২০১০) ; নাট্যম সম্মাননা (২০১০) ; বগুড়া লেখকচক্র স্বীকৃতি পুরস্কার (২০১১) ; নবকল্লোল সাহিত্য ফাউন্ডেশন পদক (২০১১); কবিতা বাংলা পুরস্কার (২০১১); ক্যাপ্টেন মনসুর আলী সম্মাননা (২০১২) ; রাইটার্স ফাউন্ডেশন সম্মাননা (২০১২) ; ২১ শতকের স্রোত (২০১২); সৃষ্টি পদক (২০১২) ; জেলা শিল্পকলা একাডেমী সম্মাননা (২০১৩); বনলতা সেন সম্মাননা (২০১৪) ; রাইটার্স এসোসিয়েশন সম্মাননা (২০১৫) ; জাতীয় কবিতা পরিষদ সম্মাননা, বরিশাল (২০১৫); লেখা প্রকাশ সম্মাননা (২০১৫) ; ভাসানী সাহিত্য পদক (২০১৫) ; স্বামী বিবেকানন্দ সম্মাননা (২০১৬) ; স্বকাল পরিষদ সম্মাননা ( ২০১৬ );
সমুজ্জ্বল সুবাতাস সম্মাননা (২০১৬) ; চয়ন সাহিত্য ক্লাব স্বর্ণপদক (২০১৬) ; এবং মানুষ সম্মাননা (২০১৬); ত্রৈলক্যনাথ বাবাজী স্মৃতি পদক (২০১৬) ; অপরাজিত সাহিত্য সম্মাননা (২০১৭) ; নজরুল সম্মাননা স্মারক (২০১৭); শেরপুর সাহিত্য চক্র পুরস্কার (২০১৭) ; লক্ষীপুর জেলা সাহিত্য সংসদ পুরস্কার-১৯; চর নিকেতন কাব্যমঞ্চ পুরস্কার (২০১৯);
ভারত: গুণীজন সম্মাননা, (২০১০) ; মহাদিগন্ত পুরস্কার (২০০৯) ; রূপসী বাংলা পুরস্কার (২০১০); লিটল ম্যাগাজিন লাইব্রেরি ও গবেষণা কেন্দ্র পুরস্কার (২০১০) ; ত্রিবৃত্ত পুরস্কার-১১  বনানী পুরস্কার-১৫; রায়গুণাকর ভারতচন্দ্র স্মৃতি পুরস্কার (২০১৬) ; কবি আলোক সরকার স্মৃতি সম্মাননা-২০১৭; কবি সুভাষ মুখোপাধ্যায় স্মারক সম্মাননা-১৯।

Facebook Comments